বাবুগঞ্জের জাহাঙ্গীর নগর আওয়ামী লীগের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস পালন

বাবুগঞ্জের জাহাঙ্গীর নগর আওয়ামী লীগের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস পালন

রফিকুল ইসলাম রনি :- করোনা কালীন সামাজিক দুুুরুত্ব বজায়ের  মধ্য দিয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় ইতিহাসের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগষ্ট নিহত সকল শহীদদের ৪৫তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক পালন করেছে আওয়ামী লীগ।

শনিবার (২৯ আগস্ট)    বিকাল ৩টার সময়ে বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার ১নং বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে ২নং ওয়ার্ড কার্যালয়ে  মিলাদ-মাহফিল, আলোচনা সভা, দোয়া-মোনাজাত  অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবনের ওপর স্মৃতিচারণ করেন বাবুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান সরদার মোঃ খালেদ হোসেন স্বপন।

তিনি এসময়ে বলেন  ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পর্যায়ে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীদের সংগঠিত হয়ে শক্তিশালী হতে হবে। তৃনমূল থেকে যড়যন্ত্রকারীদের রুখে দিতে হবে। ৭৫এর ঘাতকদের বিশ্বাস করায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে জাতী হারিয়েছে। তেমনি আওয়ামী লীগের মধ্যেই বিএনপি-জামায়াতের এজেন্টরা ঘাপটি মেরে আছে। এদেরকে চিহৃত করে এখনই বয়কট না করলে দলের তথা দেশের ক্ষতি হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে তৃনমুল সংগঠিত করার বিকল্প নাই।

জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ ইউসুফ খানের সভাপতিত্বে এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাবুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের   যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খন্দকার কামাল হোসেন, উপজেলা  আওয়ামী লীগের    সদস্য ও জাহাঙ্গীর নগর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার মোঃ তারিকুল ইসলাম তারেক।    

এছাড়াও জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের    সাধারন সম্পাদক এম আর বাদল বিশ্বাসের সঞ্চালনায়  সভায় বক্তব্য রাখেন কেদারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরে আলম বেপারি,  উপজেলা আওয়ামী লীগ সদস্য জাকির হোসেন আনিচ মোল্লা, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি নান্না আকন, ইউপি সদস্য ফরিদা ইয়াসমিন, মোঃ নয়ন, ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক মোঃ আলাল উদ্দিন, আওয়ামী লীগ নেতা রহিম প্যাদা, যুবলীগ নেতা নাদিম আল হেলাল, ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ রানা, সাগর হোসেন, রিয়াদ, মোঃ হাচান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ড আওয়ামী  দলীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যসহ যারা ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট ঘাতকদের হাতে নির্মমভাবে শাহাদাত বরন করেছিলেন তাদের বিদেহী আত্নার মাগফেরাত কামনা করেন।

" class="prev-article">Previous article

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *