রমজানকাঠী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে গরিবের বন্ধু আশাকে দেখতে চায় শিক্ষার্থীদের অভিভাবক

রমজানকাঠী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে গরিবের বন্ধু আশাকে দেখতে চায় শিক্ষার্থীদের অভিভাবক

নিজস্ব প্রতিবেদক:- বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহি গ্রাম বাংলা বিদ্যাপীঠ রমজানকাঠী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিতে সভাপতি হিসেবে গরিবের বন্ধু খ্যাতি সামাজিক সংগঠন আনাম স্মৃতি সংর্ঘ এর সভাপতি ও আওয়ামী লীগ নেত্রী মৌরীন আক্তার আশাকে দেখতে চায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও এলাকাবাসি। এদিকে বিদ্যালয়ের এডহক কমিটিতে ষড়যন্ত করে নাম না রাখায় বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগন ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

সম্প্রতি গরীবের বন্ধু আওয়ামী লীগ নেত্রী ও শিক্ষানুরাগি মৌরীন আক্তার আশাকে বিদ্যালয়টির সভাপতির জন্য শিক্ষার্থীদের অভিভাবকগন প্রধান শিক্ষকের নিকট আহবান জানিয়েছেন বলে জানাগেছে। কিন্তু ঐ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিক্ষানুরাগি আশার নাম এডহক কমিটিতে না রেখে গোপনে কাগজপত্র বোর্ডে প্রদান করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সুধু বিদ্যালয়ের অভিভাবকগন না বিদ্যালয়টির সাবেক সভাপতি থেকে শুরু করে সুশিল সমাজের সকলেই একজন সাদা মনের মানুষ আশাকে চাচ্ছেন সভাপতি হিসেবে। তিনি শিক্ষিত ও ভদ্র পরিবারের সন্তান।

এদিকে তাকে বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে রাখার জন্য বাবুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শিক্ষা অফিসারকে আহবান করেন শিক্ষার্থীরা ও অভিভাবকরা। তাকে সভাপতি পদে রাখার জন্য গণ স্বাক্ষর দিয়েছেন অভিভাবকগন।

এবিষয়ে অভিভাবকগন বলেন, বিদ্যালয়ের উন্নয়ন ও শিক্ষার মান বাড়ানোর জন্য এখন একজন নারীর প্রয়োজন আর সে হচ্ছে আমাদের গরীবের বন্ধু আশা। তাকে বিদ্যালয়ের সভাপতি করা হলে বিদ্যালয়ের উন্নয়ন ঘটবে।

এব্যাপারে মৌরীন আক্তার আশা বলেন, গ্রাম বাংলা বিদ্যাপীঠ রমজানকাঠী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গার্ডিয়ানরা এডহক কমিটির তিনটি নামের মধ্যে আমরা নামটি যেনো রাখে, এই জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের নিকট আহবান জানায় আমার জন্য তারা। কিন্তু কি হলো প্রধান শিক্ষক আমার নাম বোর্ডে পাঠালোনা। সে আমরা ফোনও ধরে না। তিনি আরো বলেন, আমি শিক্ষা নিয়ে দুর্নীতি চাই না, আমি উন্নয়ন চাই বিদ্যালয়ের। আমি সভাপতি হলো উন্নয় ঘটবে বিদ্যালয়ে। আমএক একটি সুযোগ দেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও শিক্ষা কর্মকর্তা মহাদয়।

" class="prev-article">Previous article

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *